Home / Life Style / যে ১১টি লক্ষণ দেখলে বুঝতে পারবেন আপনার কন্যা সন্তান হবে

যে ১১টি লক্ষণ দেখলে বুঝতে পারবেন আপনার কন্যা সন্তান হবে

যে ১১টি লক্ষণ দেখলে বুঝতে পারবেন আপনার কন্যা সন্তান(Daughter) হবে- সব বাবা মায়েরাই তাদের সন্তানকে খুব ভালোবাসে। সবাই তার সন্তানের ভালো চায়। সকলেই নিজের সন্তানকে নিয়ে একটা স্বপ্ন দেখে। সন্তান(Baby) জন্ম নেওয়ার আগে অনেকেরই জানার ইচ্ছা থাকে যে সেই সন্তান ছেলে হবে না মেয়ে? কিছু উপায় আছে যা অবলম্বন করলে জানা যেতে পারে সেই সন্তান(Baby) ছেলে না মেয়ে। চলুন সেগুলি জেনে নেওয়া যাক-কন্যা সন্তান

যে ১১টি লক্ষণ দেখলে বুঝতে পারবেন আপনার কন্যা সন্তান হবে

১। গর্ভাবস্থায় এমনিতেই সকালে মর্নিং সিকনেস অনুভূত হয়। বেশ অলস লাগে। যদি গর্ভে পুত্র সন্তান(Son) থাকে তাহলে কম অলসতা লাগে, আর কন্যা সন্তান থাকলে বেশি অলস মনে হয়।

২। আপনার চুল(Hair) দেখে বোঝা যায় আপনি কন্যা সন্তান জন্ম দেবেন নাকি পুত্র সন্তান। গর্ভাবস্থায় যদি আপনার চুল খুব পাতলা ও উজ্জলতাহীন হয়ে পরে তাহলে আপনি একটা ফুটফুটে কন্যা সন্তান(Daughter) জন্ম দিতে চলেছেন। আর আপনার গর্ভে পুত্র সন্তান থাকলে আপনার চুল আরো সুন্দর হয়ে উঠবে।

৩। আপনি গর্ভবস্থায় যখন ঘুমান তখন যদি নিজের অজান্তেই বেশিরভাগ সময় ডান দিক ফিরে শুয়ে থাকেন তাহলে আপনার কোলে একটি কন্যা সন্তান(Daughter) আসতে চলেছে।

৪। গর্ভবস্থায় মেয়েদের অনেক কিছু খেতে ইচ্ছা করে। যদি আপনার মিষ্টি কোন জিনিস খেতে ইচ্ছা করে, যেমন চকলেট, মিষ্টি, আইসক্রিম(Ice cream) তাহলে আপনি খুব শীঘ্রই এক কন্যা সন্তানের মা হতে চলেছেন। আর আপনার যদি নোনতা খাবার খেতে ইচ্ছা করে তাহলে আপনার পুত্র সন্তান আসতে চলেছে।

৫। গর্ভবস্থায় মেয়েদের ইউরিনের পরিবর্তন দেখা যায়। যদি মাঝে মধ্যে প্রস্রাবের রঙ পালটে সাদা ঘোলাটে হয়ে যায় তাহলে আপনি এক কন্যা সন্তানের জন্ম দিতে চলেছেন।

৬। প্রসবের দিন যত কাছে আসে গর্ভবতী মহিলার স্তনের আকার তত বেড়ে ওঠে। সেই সময় বাম দিকের স্তন(Breast) যদি ডান দিকের স্তনের তুলনায় বেশি বড় হয় তাহলে যে সন্তান আসছে সে কন্যা সন্তান।

৭। আপনার তলপেট যদি সামনের দিক বেশি ভারী হয় তাহলে আপনার পুত্র সন্তান হবে, আর যদি মাঝের দিকে বেশি ভারী হয় তাহলে কন্যা সন্তান হবে।

৮। গর্ভবস্থা কালীন একটি গ্লাসে জল ও বেকিং সোডা(Baking soda) নিন, তাতে আপনার একটু ইউরিন মেশান। যদি সেটা কোন বিক্রিয়া না করে তাহলে আপনার Daughter হবে, আর যদি সেটা বিক্রিয়া করে ফেনা ওঠে আর ফিজি শব্দ হয় তহলে পুত্র সন্তান হবে।

৯। সাইকোলজি অনুযায়ী আপনার গর্ভবস্থায় যদি আপনার মন খুব ভালো থাকে, আপনি খুব শৃঙ্ক্ষলা পরায়ন থাকেন তাহলে আপনি কন্যা সন্তানের মা হবেন। আর আপনি যদি ক্লামজি মুডে থাকেন তাহলে আপনি পুত্র সন্তানের(Son) মা হবেন।

১০। গর্ভবতী থাকা কালীন মেয়েদের শরীরে ঘন ঘন হরমোনাল পরিবর্তন হয়। তাই মুখে র‌্যাশ ব্রণ(Acne) হয়। যদি বেশি পরিমানে ত্বকের সমস্যা হয় তাহলে আপনার Daughter আসছে। ছেলে হলে ত্বকের কোন সমস্যা থাকে না।

১১। অন্তসত্তা অবস্থায় যদি পেটর ওপর দিকটা উচু মনে হয় তাহলে কন্যা সন্তান হবে। আর নীচের দিকে মনে হলে পুত্রসন্তান(Son) হবে। কিন্তু এই পদ্ধতিগুলি তে সব সময় যে ঠিক জানা যাবে তা বলাও যায় না।

সুস্থ থাকুন, নিজেকে এবং পরিবারকে ভালোবাসুন। আমাদের লেখা আপনার কেমন লাগছে ও আপনার যদি কোনো প্রশ্ন থাকে তবে নিচে কমেন্ট করে জানান। আপনার বন্ধুদের কাছে পোস্টটি পৌঁছে দিতে দয়া করে শেয়ার করুন। পুরো পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।

Check Also

পাঁচ রাশির মানুষ

এই পাঁচ রাশির মানুষ খুব দ্রুত প্রেমে পড়েন

আশা করি সবাই ভাল আছেন। আজ আপনাদের মাঝে অরেকটি আর্টিকেল নিয়ে হাজির হলাম। আজ আপনাদের ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *