Home / চুলের যত্ন / চুলের যত্নে ৫টি পুরনো ঘরোয়া হেয়ার টিপস

চুলের যত্নে ৫টি পুরনো ঘরোয়া হেয়ার টিপস

চুলের যত্নে ৫টি পুরনো ঘরোয়া হেয়ার টিপস। ওল্ড ইজ গোল্ড… ইংরেজি এই প্রবাদটার সঙ্গে আমরা সকলেই পরিচিত! ত্বক (Skin) পরিচর্যা থেকে শুরু করে চুল পরিচর্যা পর্যন্ত যে সব ঘরোয়া টোটকা আমাদের মা ঠাকুমাদের কাছ থেকে পেয়েছি আমরা, তা আজ পর্যন্ত কখনও ব্যর্থ হয়নি! আগের মতোই আমাদের বেলাতেও তা একইরকম কার্যকর! রাতে চুলে তেল মাখাই হোক, ঘুমোনোর আগে চুল বেঁধে নেওয়াই হোক, বা ঠান্ডা জলে চুল ধোওয়ার পরামর্শ, এই প্রতিটি টিপস আমাদের চুলের একাধিক সমস্যার সমাধান করতে পারে! রইল তেমনই পাঁচটি প্রাচীন টিপসের হদিশ যা আপনার চুল (Hair) রাখবে সুস্থ আর প্রাণপ্রাচুর্যে ভরপুর!চুলের যত্নে

চুলের যত্নে ৫টি পুরনো ঘরোয়া হেয়ার টিপস

১। বারবার চুল আঁচড়ানো
লম্বা, চকচকে, স্বাস্থ্যের জেল্লায় ভরপুর চুল চান? খুব সহজ! প্রতিদিন বেশ কয়েক মিনিট ধরে হালকা হাতে চুল আঁচড়ান। এতে স্ক্যাল্পের মৃত কোষ উঠে যাবে, মাথায় রক্ত সঞ্চালন (Blood circulation) হবে, এবং সেবাম তৈরি হবে যা আপনার চুলে আস্তরণের মতো কাজ করবে। এতে চুল লম্বাও হবে, ঝলমলেও হয়ে উঠবে।

২। নরম মসৃণ চুলের জন্য হেনা
পাকা চুল ঢাকতে বা চুলে রং করার জন্য হেনা ব্যবহার করা হয়। কিন্তু জানেন কি, হেনার ব্যবহারে আপনার চুল হয়ে উঠতে পারে রেশমের মতো নরম আর মসৃণ? দীর্ঘকাল ধরে মেয়েরা কন্ডিশনার (Conditioner) হিসেবে হেনা ব্যবহার করেন। হেনা চুল মসৃণ আর কোমল করে তুলতে খুবই কাজের! আমলা পাউডার আর টক দইয়ের সঙ্গে হেনা মিশিয়ে চুলে মাখুন, আর দেখুন কীভাবে দিনে দিনে চুল হয়ে ওঠে সিল্কের মতো চকচকে মসৃণ!

৩। শ্যাম্পু করার আগে অয়েল মাসাজ
সেই ছোট্টবেলা থেকে মা ঠাকুমারা বারবার শ্যাম্পুর আগে চুলে তেল মাখতে বলতেন! এবং তার যথেষ্ট কারণও ছিল! তেল স্ক্যাল্পে পুষ্টি জোগায় আর চুল আর্দ্র রাখে। শ্যাম্পু করার আধ ঘণ্টা আগে চুলে গরম তেল মাসাজ করে নিলে চুলের স্বাস্থ্য ভালো হয়, চুল (Hair) ঝলমলে সুন্দর হয়ে ওঠে!

৪। রুক্ষতা কমাতে অ্যালো ভেরা
অ্যালো ভেরা জেলে প্রচুর পুষ্টিগুণ রয়েছে যা চুলের পক্ষে উপকারী। বিশেষ করে চুল থেকে রুক্ষতা কমাতে জুড়ি নেই অ্যালো ভেরার। শ্যাম্পু করার পর হাতে খানিকটা টাটকা অ্যালো ভেরা জেল নিয়ে চুলে মেখে নিন। জেলটা চুলে শুষে যাওয়ার পর চুল ব্রাশ করে বা আঁচড়ে নিন। রুক্ষতা উধাও হয়ে চুল হয়ে উঠবে কোমল আর মসৃণ!

৫। চাল ধোওয়া জলের জাদু
পরেরবার চাল ধোওয়া জল বা ভাতের ফ্যানটা ফেলে দেবেন না! লম্বা চুলে জৌলুস আনতে এ জিনিস খুবই কাজের! চাল ধোওয়া জল আর ফ্যানে প্রোটিন, ফাইটিক অ্যাসিড (Phytic Acid) আর লিপিড থাকে যা চুলের স্বাস্থ্যরক্ষা আর বাড়বৃদ্ধিতে দারুণ সাহায্য করে। অকালে চুল সাদা হয়ে যাওয়া বা চুল ওঠার মতো সমস্যা থাকলে ব্যবহার করে দেখুন চাল ধোওয়া জল বা ভাতের ফ্যান! স্বাভাবিক শ্যাম্পু করার পর শেষবার চুল (Hair) ধুয়ে নিন চাল ধোওয়া জলে আর তফাতটা নিজেই দেখুন!

সুস্থ থাকুন, নিজেকে এবং পরিবারকে ভালোবাসুন। আমাদের লেখা আপনার কাছে কেমন লেগেছে এবং আপনার যদি কোনো প্রশ্ন অথবা মতামত থেকে থাকে তবে নিচে কমেন্ট করে আমাদের জানাতে পারেন। আর আপনার বন্ধুদের কাছে পোস্টটি পৌঁছে দিতে শেয়ার করুন। সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।

Check Also

চুল

শুষ্ক চুল মসৃণ হবে যে ৫টি স্প্রে ব্যবহারে

রুক্ষ ও শুষ্ক চুল যেমন নিষ্প্রাণ দেখায়, তেমনি আঁচড়াতে গেলে ছিঁড়েও যায় খুব সহজে। এ ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *