Home / স্বাস্থ্য টিপস / ইফতারে লেবুর শরবত কতটা স্বাস্থ্যসম্মত?

ইফতারে লেবুর শরবত কতটা স্বাস্থ্যসম্মত?

অনেক আইটেম থাকলেও শরবত না থাকলে পূর্ণতা পায় না ইফতারে আয়োজন। এক কথায় কোনো না কোনো পদের শরবত না হলে চলেই না। কারণ সারা দিন ক্ষুধার্ত ও তৃষ্ণার্ত থাকার পর প্রাণভরে শরবত খেতে মন চায়। ইফতারে অন্যান্য শরবতের চেয়েও লেবুর শরবত খাওয়ার প্রচলন বেশি। এই শরবত যেমন সুস্বাদু, তেমনই পুষ্টিকরও। কারণ লেবু হলো ভিটামিন সি (Vitamin C) এর অন্যতম উৎস। আবার লেবু খেলে মুখে রুচিও বাড়ে দ্রুত। সুগন্ধি এই ফলের স্বাদই ভিন্ন।লেবুর শরবত

ইফতারে লেবুর শরবত কতটা স্বাস্থ্যসম্মত?

ইফতারে লেবুর শরবত খেলে কী উপকার পাবেন জানা আছে কি? চলুন জেনে নেওয়া যাক, প্রতিদিন লেবু খেলে তা বিভিন্ন অসুখ-বিসুখ থেকে দূরে রাখতে কাজ করে। লেবুতে থাকে প্রচুর ভিটামিন সি। এই ফল কোলাজেন সিন্থেসিসে সাহায্য করে। সেই সঙ্গে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা (Immunity) বৃদ্ধিতেও সাহায্য করে। তাই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে নিয়মিত লেবুর শরবত কিংবা লেবু খাওয়া উচিত। এতে বিভিন্ন অসুখের সঙ্গে লড়াই করে সুস্থ থাকা সহজ হবে।

ইফতারে তো লেবুর শরবত খাবেনই, রাতের খাবারে ভাতের সঙ্গেও খেতে পারেন লেবু। এত সিজনাল বিভিন্ন সংক্রমণ (Infection) থেকে রক্ষা পাওয়া সহজ হবে। নিয়মিত লেবু খেলে তা ফ্রি ব়্যাডিকেলের ক্ষতি থেকে কোষকে রক্ষা করে। যে কারণে আপনার ত্বক থাকে সতেজ। সহজে বয়সের ছাপও পড়ে না।

লেবুতে প্রচুর জলীয় উপাদান থাকে। যে কারণে লেবু খেলে তা শরীরের তাপমাত্রা বজায় রাখতে সাহায্য করে। আবার সারাদিন রোজা থাকার পরে শরীরের পানিশূন্যতা (Dehydration) দূর করতেও কাজ করবে লেবুর শরবত। তাই রোজায় এ ধরনের সমস্যা এড়াতে লেবুর শরবত রাখতে পারেন ইফতারে।বিশেষজ্ঞরা বলছেন, লেবু খেলে তা আমাদের শরীরের রক্ত চলাচল স্বাভাবিক রাখতে কাজ করে, যার ফলে রক্তচাপ (Blood pressure) নিয়ন্ত্রণ করা অনেকটাই সহজ হয়ে যায়।

পাশাপাশি হজমের যে কোনো সমস্যা দূর করতেও এটি ভীষণভাবে কার্যকরী। তাই রোজায় হজম সংক্রান্ত সমস্যা এড়াতে ইফতারে রাখতে পারেন লেবুর শরবত। যদিও লেবুতে প্রচুর ক্যালোরি (Calorie) থাকে তবু এটি ওজন কমাতে দারুণ সাহায্য করে। লেবুর শরবত খেলে তা বহুক্ষণ পেট ভরিয়ে রাখে, যা কিনা মেদ ঝরাতে সাহায্য করে। তাই আপনার যদি বাড়তি ওজন (Weight) কমানোর চেষ্টা থাকে তা হলে লেবু আপনাকে সাহায্য করতে পারে। সে ক্ষেত্রে শরবতে চিনির পরিমাণ কমিয়ে দিতে হবে।

সুস্থ থাকুন, নিজেকে এবং পরিবারকে ভালোবাসুন। আমাদের লেখা আপনার কাছে কেমন লেগেছে এবং আপনার যদি কোনো প্রশ্ন অথবা মতামত থেকে থাকে তবে নিচে কমেন্ট করে আমাদের জানাতে পারেন। আর আপনার বন্ধুদের কাছে পোস্টটি পৌঁছে দিতে শেয়ার করুন। সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।

Check Also

খাবার

সারা দিনে শক্তি জোগাবে যেসব খাবার

সারা দিন রোজা রেখে ইফতার-পরবর্তী সময় ক্লান্তি (Tiredness) যেন জেঁকে বসে একেবারে। উৎপাদনক্ষমতা একদম কমে ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *