Home / ত্বকের যত্ন / কেমিক্যাল ছাড়াই ত্বকের যত্ন নেবেন যেভাবে

কেমিক্যাল ছাড়াই ত্বকের যত্ন নেবেন যেভাবে

কেমিক্যাল ছাড়াই ত্বকের যত্ন নেবেন যেভাবে। রাসায়নিকযুক্ত প্রসাধনীর ব্যবহার ছাড়াই এখন সুন্দর হবে আপনার ত্বক (Skin)। কীভাবে? এ জন্য নিয়মিত আপনাকে স্মুদি পান করতে হবে। স্মুদি ভেতর থেকে ত্বককে ভালো রাখতে সাহায্য করে, এমনটাই বলছিলেন পুষ্টিবিশেষজ্ঞ জেনিফার বিনতে হক। দুই থেকে তিন ধরনের ফলসহ অন্যান্য উপকরণ থাকার কারণে স্মুদিতে থাকে প্রচুর ফাইবার। এই ফাইবারের কারণে পেট থাকে পরিষ্কার। যে কারণে ব্রণের মতো সমস্যা সহজে এড়ানো যায়। ফল (Fruit), শাক, দই, সবজির মিশ্রণে তৈরি স্মুদিতে থাকা পানি শরীরের পানির ভারসাম্য বজায় রেখে ত্বকের আর্দ্রতা ঠিক রাখতে সাহায্য করে। যেভাবে বানাবেন এই স্মুদি…ত্বকের যত্ন

কেমিক্যাল ছাড়াই ত্বকের যত্ন নেবেন যেভাবে

১ কাপ টক দইয়ের সঙ্গে ২ চা-চামচ চিয়া সিড, বিভিন্ন ধরনের বাদাম আধা কাপ মিশিয়ে একসঙ্গে ব্লেন্ড করে নিন। এই স্মুদিটি ত্বকের উপরিভাগের মসৃণতা ধরে রাখতে সাহায্য করে। পাশাপাশি ত্বক (Skin) পুনর্গঠনেও সাহায্য করবে।

আধা কাপ করে জাম্বুরা ও পাকা পেঁপের সঙ্গে একটি ছোট্ট আমড়া, ছোট কমলা ও আধা কাপ টক দই (Sour yogurt) মিশিয়ে নিন। এই স্মুদি ত্বকে সুস্থতা বজায় রাখতে সাহায্য করবে।

একটি ছোট কলার সঙ্গে ১ টেবিল চামচ ওটস, আধা কাপ দুধ, কোরানো নারকেল (Coconut) দুই টেবিল চামচ মিশিয়ে তৈরি করতে পারেন স্মুদি। এই স্মুদি নিয়মিত খেলে সহজে বুড়িয়ে যাবে না ত্বক।

একমুঠো পালংশাক, আধা কাপ বাঁধাকপি, আধা কাপ ব্রকলি, আধা কাপ শসার সঙ্গে আধা কাপ পানি দিয়ে ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করে নিন। চাইলে এর সঙ্গে লেবুর রস (Lemon juice) মিশিয়ে নিতে পারেন। এই স্মুদি ভেতর থেকে ত্বকের সব ধরনের সুরক্ষা দিতে সাহায্য করবে। পাশাপাশি দূর করবে ত্বকের পোড়া ভাব।

আমাদের লেখা আপনার কাছে কেমন লেগেছে এবং আপনার যদি কোনো প্রশ্ন অথবা মতামত থেকে থাকে তবে নিচে কমেন্ট করে আমাদের জানাতে পারেন। আর আপনার বন্ধুদের কাছে পোস্টটি পৌঁছে দিতে শেয়ার করুন। সুস্থ থাকুন, নিজেকে এবং পরিবারকে ভালোবাসুন।

Check Also

ত্বকের যত্ন

গ্রীষ্মের গরমে ত্বকের যত্ন নিতে পাকা পেঁপের ব্যবহার

গ্রীষ্মের গরমে ত্বকের যত্ন নিতে পাকা পেঁপের ব্যবহার। গ্রীষ্মের প্রখর গরমে ত্বকের যাচ্ছেতাই অবস্থা। তার ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *