Home / ত্বকের যত্ন / এই ভ্যাপসা গরমে ত্বকের যত্ন নিতে আপনার করনীয়

এই ভ্যাপসা গরমে ত্বকের যত্ন নিতে আপনার করনীয়

এই ভ্যাপসা গরমে ত্বকের যত্ন নিতে আপনার করনীয়। এই ভাদুড়ে ভ্যাপসা গরমে যাদের ত্বক(Skin) তৈলাক্ত, তাদের ভোগান্তির যেনো অন্ত নেই। ঘামের কারণে কমবেশি সবারই হয় অস্বস্তি, আবার গরমে তৈলাক্ত ত্বকে বাইরের ধুলা – ময়লা আটকে গিয়েও সমস্যা হতে পারে। ব্রণের সমস্যায়(Acne problem) ভোগেন অনেকেই। আর মেকআপের ব্যাপারেও থাকতে হয় সতর্ক। তৈলাক্ত ত্বকে প্রসাধনী ব্যবহার এবং এই ধরনের ত্বকের যত্ন(Skin care) প্রসঙ্গে কিছু পরামর্শ দিয়েছেন সাবেক চিত্রতারকা এবং আন্না’স মেকওভার স্টুডিওর স্বত্ত্বাধিকারী – বিউটি এক্সপার্ট নাহিদা আশরাফ আন্না।গরমে ত্বকের যত্ন

এই ভ্যাপসা গরমে ত্বকের যত্ন নিতে আপনার করনীয়

ত্বক রাখুন পরিষ্কার :
নিয়মিত মুখের ত্বক(Skin) পরিষ্কার করুন। ঘাম ও মুখের তৈলাক্ত ভাবের কারণে অস্বস্তি হয় বলে নিজের সুবিধামতো সময়ে বারবার মুখ ধুয়ে নিতে চেষ্টা করুন। মুখ ধোয়ার পানিতে দুয়েক ফোঁটা গোলাপজল(Rose water) মিশিয়ে নিতে পারেন, তাতে সতেজ অনুভূতি পাবেন। বাজারে যেসব ফেসওয়াশ(Facewash) কিনতে পাওয়া যায়, তা যদি আপনার ত্বকে মানিয়ে যায়, তবে সেটি ব্যবহার করতে পারেন।দিনে অন্তত দুবার গোসল করুন।

আবার গরম পানিতে নিমপাতা ডুবিয়ে রেখে সেই পানিতে গোসল করতে পারেন, এতে বিভিন্ন জীবাণুর সংক্রমণ(Bacterial infections) থেকে বাঁচবেন। বাজারে পাওয়া নিমযুক্ত সাবানও ব্যবহার করতে পারেন। তবে পাউডার ব্যবহার করলেও তা অবশ্যই দিন শেষে পরিষ্কার করে ফেলবেন।

মেকআপ হবে যেমন :
যে প্রসাধনীই ব্যবহার করুন না কেন, সেটা হতে হবে ওয়াটার – বেসড বা পানিনির্ভর। অর্থাৎ অয়েল – বেসড বা তেলের প্রাধান্য বেশি এমন কোনো প্রসাধনী ব্যবহার করা যাবে না। ফাউন্ডেশন লাগাতে হবে খুব কম। তবে ফেসপাউডার(Face powder) লাগালে কোনো ক্ষতি নেই। আবার এমন আইলাইনার লাগানো উচিত, যেন তা ভিজে গেলেও মুছে না যায়।

ত্বকের ঘরোয়া যত্ন :
মুলতানি মাটি, চন্দনের গুঁড়া, কাগজিলেবুর রস এবং সর তোলা দুধ বা টকদই(Sour yogurt) একত্রে মিশিয়ে মুখে লাগিয়ে রাখতে পারেন ১০ – ১৫ মিনিট। এতে ত্বকের বাড়তি তেল ও ময়লা বেরিয়ে যাবে। তবে কাগজি লেবুর রস(Lemon juice) সরাসরি ব্যবহার না করে এটিকে গোলাপজলের সঙ্গে মিশিয়ে নিয়ে তারপর ব্যবহার করুন। আর চন্দনের পরিবর্তে চাইলে ভিজিয়ে রাখা মসুরের ডাল বেটে নিয়ে ব্যবহার করতে পারেন।

ব্রণের সমস্যা :
ব্রণ(Acne) সাধারণত একটি নির্দিষ্ট বয়সসীমার মধ্যেই হয়ে থাকে। উঠতি বয়সীদের মধ্যেই এই সমস্যা বেশি দেখা যায়, তবে কখনো কখনো ব্রণের সমস্যা হতে পারে তরুণীদেরও। ব্রণ(Acne) থেকে দুই ধরনের সমস্যা হতে পারে। একটি হচ্ছে দাগ এবং অপরটি হচ্ছে ক্ষত সৃষ্টি হওয়া। তবে ব্রণ ভালো হয়ে যাওয়ার পর ধীরে ধীরে এমনিতেই দাগ চলে যায়। কিন্তু এমনিতে দাগ না চলে গেলে দাগ দূর করার ক্রিম(Cream) ব্যবহার করা যেতে পারে। অতিরিক্ত রোদ ও গরমে ব্রণ বেশি হতে পারে।

জেনে নিন :
বেসন(Bason) অথবা মসুরের ডাল বাটার সঙ্গে টক দই(Sour yogurt), আমন্ড বাদাম, কমলালেবুর খোসা বাটা এবং নিমপাতা বাটা দিয়ে একটি প্যাক তৈরি করতে পারেন। এটি তৈরি করে ফ্রিজে রেখে কয়েক দিন পর্যন্ত ব্যবহার করতে পারেন। প্যাকটি প্রতিদিন মুখে লাগাবেন এবং ভেজা তোয়ালে দিয়ে মুছে নেবেন। মুখ(Face) ছাড়াও প্যাকটি শরীরের যেকোনো জায়গায় সাবানের পরিবর্তে ব্যবহার করতে পারেন। এছাড়া ১৫ দিন পর পর ফেসিয়াল করাতে পারেন।

ব্ল্যাকহেডস :
এটা দূর করতে চালের গুঁড়া পানি দিয়ে বা দুধ(Milk) দিয়ে ভিজিয়ে নিয়ে এর সঙ্গে চিনি এবং অ্যাপ্রিকট ফল বাটা মিশিয়ে একটি দানাদার প্যাক তৈরি করুন। প্যাকটি মুখে লাগান। শুকিয়ে যাওয়ার পর ভেজা তোয়ালে দিয়ে ঘষে তুলে ফেলুন। দারুন ফল পাবেন।

ত্বকের যত্ন নিয়ে কিছু জরুরি পরামর্শ :
গরমে যাদের ত্বকে ঘামাচি হয়, তারা নিমপাতার রস লাগালে উপকার পাবেন। তেঁতো জাতীয় খাবার খান। ঘাম বেশি হলে ট্যালকম পাউডারের সাথে এক চিমটি খাবার সোডা(Soda) ব্যবহার করুন।

গরমে ত্বক শুষ্ক হয়ে পড়ে। তাই রূপচর্চা করা জরুরী। ত্বক(Skin) তৈলাক্ত হলে বার বার মুখ পরিষ্কার করতে হবে। শশা বাটা এবং মুশুরি ডাল বাটা দুটো পেস্ট করে মুখে লাগিয়ে ১৫ মিনিট পর মুখ ধুয়ে ফেলুন। আপনার মুখের তেলতেলে ভাব কেটে যাবে।

লাউয়ের রস, তরমুজের জুস বরফ করে মুখে ঘষুন। এতে রোদে পোড়াভাব দূর হয়ে সাথে সাথে আপনার ত্বক(Skin) হয়ে উঠবে উজ্জ্বল মোলায়েম।

গরমে তৈলাক্ত ত্বক দ্রুত ঘেমে যায় ও ময়লা দ্রুত শুষে নেয়। এ সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে আপনি শশার রস(Cucumber juice) পরিমাণমতো, আধা চা চামচ লেবুর রস, আধা চামচ গোলাপ জলে মিশিয়ে লোশনের মতো মুখে লাগিয়ে আধাঘণ্টা পরে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে অন্তত চার – পাঁচ দিন করুন।

গরমে ব্রনের মাত্রা বেড়ে যায়। ব্রণ(Acne) এড়াতে সপ্তাহে তিন, চার বার চিরতার পানি এবং দুই – তিনটি কাঁচা হলুদ ও আখের গুঁড় খেতে পারেন। সব সময় মুখ পরিষ্কার রাখবেন। নিমপাতা, হলুদ, চিরতা ও মুলতানি মাটি এক সঙ্গে মিলিয়ে পেস্ট বানিয়ে ব্যবহার করলেও উপকার পাবেন।

রোদের প্রচন্ড তাপের কারণে ত্বকের ছোপ ছোপ দাগ দূর করার জন্য টমেটোর রস(Tomato juice), কাঁচা হলুদের রস, ভুসিওয়ালা আটা মিশিয়ে মুখ, গলা ও ঘাড়ে লাগান। গোলাপজল দিয়ে মুছে ধুয়ে ফেলুন। কাঁচা দুধ, লেবুর রস(Lemon juice), পাকা পেঁপে, চন্দন, গোলাপের পাপড়ি একসঙ্গে মিশিয়ে পেস্ট করে নিয়ে পুরো ত্বকে লাগান, হালকা ম্যাসাজ করুন। ভালো ফল পাবেন।

গরমে যাদের ত্বকে ঘামাচি হয়, তারা নিমপাতার রস লাগালে উপকার পাবেন। তেঁতো জাতীয় খাবার খান। ঘাম বেশি হলে ট্যালকম পাউডারের সাথে এক চিমটি খাবার সোডা ব্যবহার করুন।

সুস্থ থাকুন, নিজেকে এবং পরিবারকে ভালোবাসুন। আমাদের লেখা আপনার কেমন লাগছে ও আপনার যদি কোনো প্রশ্ন থাকে তবে নিচে কমেন্ট করে জানান। আপনার বন্ধুদের কাছে পোস্টটি পৌঁছে দিতে দয়া করে শেয়ার করুন। পুরো পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।

Check Also

বগলের কালো দাগ

বগলের কালো দাগ দূর হবে মাত্র ১টি উপাদানে

বগলের কালো দাগ (Armpit black spots) বিভিন্ন কারণে হয়ে থাকে। এর মধ্যে অন্যতম হলো টাইট ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *